মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
সাউদিয়া সিটি পার্ক

ঢাকা থেকে বগুড়া কিভাবে যাবেন ইতিমধ্যেই  উল্লেখ করা হয়েছে। শেরপুর উপজেলার দিকনির্দেশিকা পেতে এখানে ক্লিক করুন http://bit.ly/1g3IwMk শেরপুর উপজেলা হতে পায় ৭ কিলোমিটার দক্ষিনে এবং সেখানে সিএনজি/অটোরিক্সা/ভ্যান/রিক্সা ইত্যাদি দ্বারা যাওয়া সম্ভব।

বগুড়ায় থাকার ব্যাবস্থা বেশ উন্নত। আপনি এখানে চার তারকা হোটেলও পেয়ে যাবেন। বগুড়ায় উন্নত মানের থাকার জায়গার মধ্যে আছেঃ

১। হোটেল নাজ গার্ডেন,
ঠিকানাঃ সিলিমপুর, বগুড়া-৫৮০০, বাংলাদেশ
ফোনঃ ৮৮-০৫১-৬২৪৬৮, ৬৬৬৫৫, ৬৩২৭২, ৬৪১৯৭, ৭৮০৮৮

২। পর্যটন মোটেল
বনানী মোড়, বগুড়া, ফোনঃ০৫১-৬৬৭৫৩

৩। আকবরিয়া হোটেল
ওয়েব সাইটঃ http://urbita.com/bangladesh/bogra/akboria-hotel
ঠিকানাঃ কাজী নজরুল ইসলাম রোড, থানারোড, বগুড়া, ফোনঃ ০১৭১৬-১৭৯৯৮২

বগুড়া শহরের আরও কিছু হোটেলের নাম:
১। হোটেল আল আমিন, নবাববাড়ি রোড
২। মোটেল নর্থ ওয়ে, শেরপুর রোড
৩। হোটেল রয়াল প্যালেস, উপশহর
৪। হোটেল সান ভিউ,শেরপুর রোড
৫। হোটেল সেফওয়ে, শান্তাহার মোড়
৬। হোটেল রাজমনি, বগুড়া রাজা বাজার
১০। হোটেল হানি ডে, বড় মসজিদ লেইন
১১। হোটেল আজিজ, কবি নজরুল ইসলাম রোড

 
 
শেরপুরের ঐহিত্যবাহী মা-ভবানীর মন্দির শেরপুর উপজেলা হতে দক্ষিন দিকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে এবং বিশ্বরোড থেকে ০১ কিলোমিটার পশ্চিমে দিকে সিএনজি/বাস/অটোরিক্সা ইত্যাদি দ্বারা ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদে এবং মা-ভবানীর মন্দিরে যাওয়া সম্ভব।
পঞ্চদশ শতাব্দীর ঐতিহাসিক খেরুয়া মসজিদ শেরপুর উপজেলা হতে দক্ষিণ দিকে বিশ্বরোড হতে পশ্চিম দিকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে রিক্সা/সিএনজি/ভ্যান দ্বারা খেরুয়া মসজিদে যাওয়া সম্ভব।
জমিদার বাড়ি শেরপুর উপজেলা হতে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে সীমাবাড়ি ইউনিয়নের অর্ন্তগত বিশাল এই জমিদার বাড়ি। সেখানে মোটর সাইকেল/সিএনজি/বাস যোগে যাওয়া সম্ভব।
শহীদদের গণকবর বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলায় ০৫ নং মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে অবস্থিত। সেখানে সিএনজি.মোটর-সাইকেল ইত্যাদি দ্বারা যাওয়া সম্ভব।

Share with :