মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শেরপুর উপজেলায় অবস্থিত পল্লী উন্নয়ন একাডেমী,শেরপুর,বগুড়া।

উত্তরাঞ্চলের বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলায় বগুড়া-ঢাকা মহাসড়ক সংলগ্ন বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমি

 

একাডেমী পরিচিতি

পল্লী উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কাজ পরিচালনার জন্য সরকার দেশের উত্তরাঞ্চলে একটি পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য ১৯৭৪ সালের ১৯ জুন বগুড়াতে পল্লী উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠা করা হয় এবং ১৯৭৪ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে বগুড়া শহরে এর কার্যক্রম শুরু হয়। বগুড়া শহর থেকে দক্ষিণে শেরপুর উপজেলায় বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বে নিজস্ব অংগনে ১৯৮০ সালের জুন মাসে এর কার্যালয় স্থানান্তর করা হয়। একাডেমী  ১২০ একর জমির উপর অবস্থিত। ৪০ একর জমিতে অফিস, লাইব্রেরী, হোষ্টেল, ক্যাফেটেরিয়া, মসজিদ, স্কুল এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসস্থল রয়েছে। অবশিষ্ট ৮০ একর জমিতে প্রদর্শনী খামার রয়েছে।

একাডেমীর উদ্দেশ্য

K)       পল্লী উন্নয়ন ক্ষেত্রে নিয়োজিত বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার ও সমবায় নেতৃবৃন্দ, স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানসমূহের কর্মী ও কৃষক প্রতিনিধিদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ প্রদান করা;

L)        পল্লী জীবনের বিভিন্ন দিকসমূহের উপর গবেষণা পরিচালনা করা এবং এ ধরনের গবেষণা কাজের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়া;

M)        পল্লী উন্নয়নের নীতি এবং কর্মসূচী প্রণয়ন, বাস্তবায়ন ও মূল্যায়নের উপর উপদেশমূলক সেবা প্রদান করা;

N)        পল্লী উন্নয়নের ক্ষেত্রে সেমিনার, কর্মশালা ইত্যাদির আয়োজন করা।

একাডেমীর ব্যবস্থাপনা

একাডেমী স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের আওতায় একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। একাডেমীর কার্যক্রমের দিক নির্দেশনার জন্য একটি বোর্ড অব গভর্নরসরয়েছে। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় পদাধিকারবলে এই বোর্ডের সভাপতি এবং একাডেমীর মহাপরিচালক পদাধিকারবলে সদস্য-সচিব। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং বেশ কয়েকটি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ পদাধিকারবলে বোর্ডের  সদস্য। একাডেমীর সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য একজন মহাপরিচালক এবং তাকে সহযোগিতা প্রদানের জন্য একজন অতিরিক্ত মহাপরিচালক রয়েছেন। একাডেমীর বিভিন্ন কার্যক্রম নিম্নলিখিত বিভাগ কর্তৃক পরিচালিত হয়ঃ

K)       প্রশাসন বিভাগ

L)       কৃষি বিজ্ঞান বিভাগ

M)       সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগ 

N)       প্রশিক্ষণ বিভাগ

O)        গবেষণা ও মূল্যায়ন বিভাগ

P)        খামার  প্রযুক্তি, সেচ ও পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা

Q)        প্রকল্প পরিকল্পনা ও পরিবীক্ষণ

R)       পল্লী প্রশাসন এবং জেন্ডার

 

অনুষদ পর্যায়ে ৬১ জন কর্মকর্তাসহ একাডেমীর সর্বমোট অনুমোদিত কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সংখ্যা ৩০৪ জন। বর্তমানে অনুষদ সদস্যের সংখ্যা ৪৩ জন।